টেক গ্রাউন্ড প্রতিনিধি :- বহুদিন ধরেই Apple-এর MacBook Pro এর বিরুদ্ধে পুরনো জেনারেশানের CPU ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছিল। সম্প্রতি লেটেস্ট অষ্টম জেনারেশানের Intel Core প্রসেসার ব্যবহার করে ২০১৮ MacBook Pro লঞ্চ করেছে Apple। এর পর থেকেই বিতর্কের সূত্রপাত।

জনপ্রিয় টেক ইউটিউবার ডেভ লি জানিয়েছেন Core i9 প্রসেসারের নতুন ১৫ ইঞ্চি MacBook Pro প্রয়োজনের ইয়ুলনায় অতিরিক্ত গরম হয়ে যাচ্ছে। এর ফলেই প্রসেসারের বেস স্পিড 2.9 GHz এ কখনোই পৌঁছেতে পারছে না এই ল্যাপটপ। প্রসঙ্গত এই প্রসেসার এর নুন্যতম ক্লক স্পিড 2.9 GHz। যদিও এর থেকে অনেক বেশি ক্লক স্পিডে এই প্রসেসার চলতে পারে। তবে নতুন ১৫ ইঞ্চি MacBook Pro এর Core i9 ভেরিয়েন্টের এই প্রসেসার বেস ক্লক স্পিডে পৌঁছাতে পারছে না।

ডেভ জানিয়েছেন যে চ্যাসিসে এই ল্যাপটপ তৈরী হয়েছে তা Core i9 প্রসেসারের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রনের জন্য যথেষ্ট নয়। এর ফলেই এই সমস্যার সম্মুখিন হতে হচ্ছে। যে কোন প্রসেসারের অন্যতম মাপদন্ড প্রসেসারের ভিডিও রেন্ডারিং এর ক্ষমতা। একই ভিডিও বিভিন্ন ল্যাপটপে রেন্ডার করে ডেভ দেখিয়েছেন নতুন এই Core i9 ১৫ ইঞ্চি MacBook Pro এর থেকে ২০১৭ সালের Core 7 MacBook Pro তে 4K ভিডিও কম সময়ে রেন্ডার হয়েছে।

একই ভিডিওতে বিভিন্ন ল্যাপটপে রেন্ডার করে ডেভ দেখিয়েছেন Core i9 ২০১৮ ১৫ ইঞ্চি MacBook Pro তে যে ভিডিও রেন্ডার হতে ৩৯ মিনিট ৩৭ সেকেন্ড লেগেছে সেই একই ভিডিও Core i7 ২০১৭ MacBook Pro তে ৩৫ মিনিট ২২ সেকেন্ডে রেন্ডার হয়েছে। ডেভ জানিয়েছেন থার্মাল ঠ্রটলিং এর জন্যই এই সমস্যা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত কোন প্রসেসার অতিরিক্ত গরম হলে তা নিজে থেকেই ক্লক স্পিড কমিয়ে দেয়। এর ফলে প্রসেসারের পারফর্মেন্স কমে যায়। যে কারনে যে কোন ল্যাপটপ বা ডেস্কটপে ভালো থার্মাল সলিউশান থাকা অত্যন্ত জরুরি।

এর পরেই এই ২০১৮ MacBook Pro কে রেফ্রিফারেটারে ঢুকিয়ে রেন্ডার করেছেন ডেভ। সেখানে দেখা যাচ্ছে আগে যে রেন্ডার হতে ৩৯ মিনিট ৩৭ সেকেন্ড লেগেছিল রেফ্রিজারেটারে কম তাপমাত্রায় মাত্র ২৭ মিনিট ১৮ সেকেন্ডে সেই রেন্ডার শেষ হয়েছে।

এর পর থেকেই টেক দুনিয়াতে জল্পনা শুরু হয়েছে। অনেকেই নতুন এই Core i9 MacBook Pro কম দামে বিক্রি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আর আবার এক নতুন বিতর্কে নাম জড়িয়েছে Apple-এর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here