টেক গ্রাউন্ড প্রতিনিধি :- বিশ্বে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে দিন দিন নারীর অংশগ্রহণ বাড়ছে। তারপরও খাতটিতে মাত্র দুই শতাংশ নারী নেতৃস্থানীয় পর্যায়ে কাজ করছেন।

সোমবার প্রকাশিত এক জরিপের ফলাফলে এমন বিষয় উঠে এসেছে। ‘তথ্যপ্রযুক্তিতে নারী ২০১৮ : লৈঙ্গিক বাধা ঘোঁচানো’ শিরোনামে ওই জরিপটি পরিচালনা করা হয় বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশের নারীর উপর।

জরিপ কাজটি পরিচালনা করে হ্যাকারআর্থ নামের একটি প্রতিষ্ঠান। এটি মূলত উদ্ভাবন ও মেধা খুঁজে বের করে কাজে লাগানোর প্রতিষ্ঠান হিসেবেই বেশি পরিচিত।

কর্মক্ষেত্রে নারীরা কতটা চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হয় এবং সেই চ্যালেঞ্জ টপকে কিভাবে নিজের অবস্থান তৈরি করতে কাজ করেন সেসব দেখতেই এমন জরিপ বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

জরিপটি বলছে, মাত্র এক তৃতীয়াংশ নারী প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোতে কাজ করছে নেতৃস্থানীয় পর্যায়ে। যা একটি বড় ধরনের বৈষম্যকে ইঙ্গিত করে।

যদিও উত্তর দেওয়া অন্তত ৮৬ শতাংশ নারী পড়াশোনায় ডিগ্রি নিয়েছেন কম্পিউটার সায়েন্স থেকে। যাদের অনেকেরই নিজেদের ক্যারিয়ার নিয়ে কোন ধরনের পূর্ব অভিজ্ঞতা নেই। আর এর মধ্যে মাত্র দুই শতাংশই শীর্ষ পদে যেতে পারছেন।

কম্পিউটার সায়েন্সে ডিগ্রিধারী নারীর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। কিন্তু যখন তারা কোন পেশায় আসছেন, তাদের মধ্যে শীর্ষস্থানে যাবার হার খুবই কম, বলেন হ্যাকারআর্থের সহপ্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান কারিগরি কর্মকর্তা বিবেক প্রকাশ।

তিনি বলেন, আমরা চেষ্টা করছি, এমন কিছু নারীকে প্রশিক্ষণ দিয়ে তাদের কর্মদক্ষতাকে বাড়াতে। এমনকি এর পাশাপাশি আমরা চাই তাদের শীর্ষস্থানে যাবার পরিমাণটিও বাড়াতে।

এমন কী এসব নারীরা পুরুষদের তুলনায় কম বেতন পান। যে কারণে এর মধ্যে ৫০ শতাংশ ডেভেলপার নতুন কাজ খোঁজ করেন।

আর ৫ শতাংশ মনে করেন, তাদের মধ্যে যে লিঙ্গ বৈষম্য করা হয় এর জন্য তারা প্রতিনিয়তই হতাশায় ভুগতে থাকেন।

বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড অবলম্বনে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here